বিশ্ব সংবাদ

ফেসবুকে ধর্ম ও রাজনৈতিক বিশ্বাস প্রদর্শন করা হবে না

সামাজিক যোগেযোগ মাধ্যম ফেসবুক প্রোফাইলের ইন্টারেস্ট অপশন থেকে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সরিয়ে ফেলছে মেটা। আগামী ডিসেম্বরের প্রথম দিন থেকে বড় ধরনের এ পরিবর্তন আনার ঘোষণা দিয়েছে জাকারবার্গের প্রতিষ্ঠানটি। এরই মধ্যে ব্যবহারকারীদের নোটিফিকেশন দেওয়া শুরু করেছে। নতুন আপডেটের ফলে ফেসবুকের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক বিশ্বাসের অপশনগুলো আর প্রোফাইলে দেখা যাবে না।

ফেসবুক প্রোফাইল ব্যবহারকারীর যোগাযোগের ঠিকানাসহ ব্যক্তিগত চারটি তথ্য আর প্রদর্শন করা হবে না। ইতোমধ্যে ব্যবহারকারীদের নোটিফিকেশন পাঠানো হয়েছে। ফেসবুকের পাঠানো নোটিফিকেশনে বলা হয়েছে, ১ ডিসেম্বর থেকে ‘অ্যাড্রেসেস’, ‘ইন্টারেস্টেড ইন’, ‘রিলিজিয়াস ভিউজ’ এবং ‘পলিটিক্যাল ভিউজ’-এই চারটি তথ্য দেখাবে না। এতদিন ব্যবহারকারী তাদের রাজনৈতিক ও ধর্ম বিশ্বাসের মতো ব্যক্তিগত তথ্য-উপাত্ত ফেসবুকের ‘ইন্টারেস্টেড ইন’ ক্যাটাগরিতে শেয়ার করার সুযোগ পেত।

.তবে এসব তথ্য সংরক্ষণের জন্য ডাউনলোড করার সুযোগ দিচ্ছে জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।
এতদিন প্রোফাইল অ্যাকাউন্টে সেক্স, পলিটিক্যাল ভিউ, রিলিজিয়াস ভিউ প্রদর্শন করত। ১ ডিসেম্বর থেকে এগুলোও বাদ যাচ্ছে।

মেটার মূখপাত্র এমিল ভ্যাসকেজ প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট গিজমোডোকে জানিয়েছেন, ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাজ সহজ করতে এ পরিবর্বতনগুলো আসছে। যেসব ব্যবহারকারী আগে এসব তথ্য শেয়ার করেছেন, আমরা তাদের নোটিফিকেশন পাঠিয়ে জানাচ্ছি- এ শ্রেণিগুলো মুছে দেওয়া হবে। এ পরিবর্তনে কারও নিজে থেকে এসব তথ্য ফেসবুকের অন্যান্য জায়গায় শেয়ার করার সক্ষমতা প্রভাবিত হবে না।

.এর আগে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে বিজ্ঞাপন দেওয়ার ক্ষেত্রে ফেসবুক ব্যবহারকারীর লিঙ্গ পরিচয়, ধর্ম বা রাজনৈতিক বিশ্বাসের মতো বিষয়বস্তু লক্ষ্য করতে বিজ্ঞাপন দেওয়া বন্ধ করেছিল। এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপনদাতারা ফেসবুক ব্যবহারকারীদের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন পোস্ট, জাতি বা জাতিসত্তা বিষয়ক কথাবার্তা, রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা, ধর্ম, যৌনতা, সংস্থা বা ব্যক্তির সঙ্গে মিথস্ক্রিয়াগুলির ওপর ভিত্তি করে ব্যবহারকারীদের খুঁজে বের করতে পারতেন। কিন্তু চলতি বছর থেকে এড এ টার্গেটিং অপশন মুছে ফেলা হয়েছে।

 

আরও পড়ুনঃ বিদেশি শিক্ষার্থী কমানোর কথা ভাবছেন ঋষি সুনাক

Back to top button