বিশ্ব সংবাদ
চলমান

১৬০টিরও বেশি দেশ চীনের পাশে আছে: চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

শুক্রবার (৬ আগস্ট) চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে মুখপাত্র হুয়া ছুন ইং বলেন, ন্যান্সি পেলোসির কথিত তাইওয়ান সফরের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যেই ১৬০টিরও বেশি দেশ সোচ্চার হয়েছে, তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।
মুখপাত্র বলেন, এসব দেশ এ সফরকে উস্কানিমূলক, অত্যন্ত বেপরোয়া, ও দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে আখ্যায়িত করেছে। দেশগুলো ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলার প্রতিশ্রুতিও পুনর্ব্যক্ত করেছে।

এদিকে, শ্রীলংকার প্রেসিডেন্ট রানিল বিক্রমাসিংহে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বলেছেন, তাঁর দেশ দৃঢ়ভাবে ‘এক-চীন নীতি’ এবং জাতিসংঘের সনদে বর্ণিত জাতীয় সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার নীতিমালা মেনে চলবে।

সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্প্রতি চীনা রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলার ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’র সঙ্গে বৈঠকে বলেছেন, তাঁর দেশ ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলবে।

থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, চীনের জাতীয় সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্মান করে তাঁর দেশ।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এক বিবৃতিতে বলেছেন, পশ্চিমা দেশগুলো তাইওয়ান ও ইউক্রেন ইস্যুতে দ্বৈতনীতি পরিহার করে চলবে বলে তাঁর দেশ আশা করে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চীনের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার পক্ষে আমিরাত। দেশটি ‘এক চীন নীতি’-কেও সম্মান করে যাবে।

আফগান অস্থায়ী সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানান, তাঁর দেশ ‘এক চীন নীতি’ মেনে চলবে। অপর দেশের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘনকারী উস্কানিমূলক আচরণ থেকে বিরত থাকতে সকল দেশের প্রতি আহ্বান জানায় কাবুল।

অল ইন্ডিয়া অ্যাডভান্সমেন্ট অ্যালায়েন্স অফ ইন্ডিয়ার কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এক বিবৃতিতে পেলোসির কথিত তাইওয়ার সফরের তীব্র নিন্দা জানান।

(ওয়াং হাইমান ঊর্মি, সাংবাদিক, বাংলা বিভাগ, চায়না মিডিয়া গ্রুপ, বেইজিং, চীন। )

Back to top button