পুনমকে বিয়ে করে মধুচন্দ্রিমায় হাজতবাস

জরায়ু-মুখের ক্যানসারে পুনম পাণ্ডে মৃত্যু হয়েছে— এই খবরে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয় গোটা দেশে। তবে এক দিন পার হতেই নিজেই ক্ষমা চেয়ে জীবিত থাকার খবর জানান অভিনেত্রী।

জরায়ু-মুখের ক্যানসার নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতেই এই পন্থা অবলম্বন করেছেন জানিয়েছেন পুনম। শুক্রবার পুনমের মৃত্যুর খবর পেয়ে শোকে ভেঙে পড়ে গোটা বলিউড। অনুপম খের, কঙ্গনা রানাউতের মতো বড় পর্দার তারকা থেকে ছোট পর্দার অভিনেতারাও শোকপ্রকাশ করতে শুরু করেন।

শনিবার পুনম প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষেপেছেন তাঁরাই। অভিনেত্রীকে কড়া ভাষায় নিন্দা করেছেন। ক্যানসার নিয়ে পুনম ‘ঠাট্টা-তামাশা’ করেছেন, এই অভিযোগ তুলে তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর করা হোক বলে দাবি তোলে ‘দি অল ইন্ডিয়ান সিনে ওয়ার্কার্স অ্যাসোসিয়েশন’। তবে অভিনেত্রীর এই দুর্দিনে তাঁকে ‘সাহসী’ আখ্যা দিলেন তাঁর প্রাক্তন স্বামী স্যাম বোম্বে।

প্রথম থেকেই পুনমের মৃত্যুর খবর বিশ্বাস করে উঠতে পারেননি স্যাম। ক্রমাগত বলেছেন তাঁর খটকা লাগছে। অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর তিনি সমাজমাধ্যমে লেখেন, ‘‘আমি এখনও পুরোপুরি এটা বিশ্বাসই করে উঠতে পারছি না। এই খবরটা বিশ্বাস করতে চাই না। নিজেকে গোছানোর চেষ্টা করছি। এই সময়ে সকলের সমবেদনার জন্য ধন্যবাদ, তবে আমার কেন জানি একটা খটকা লাগছে। কিছু ঠিক নেই।’’

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে বিয়ে করেন স্যাম-পুনম। সেই মাসেই গোয়ায় মধুচন্দ্রিমায় গিয়ে বিতর্কে জড়ান। ঘুরতে গিয়ে তিনি স্বামীর বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ এনেছিলেন। দক্ষিণ গোয়ার ক্যানাকোনা থানায় স্বামী স্যাম বম্বের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি এবং শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

সে বারও স্যামকে গ্রেফতার করা হয়। তার পর মাসখানেকের মধ্যে বিচ্ছেদ হয় স্যাম-পুনমের। তবে সেই বিচ্ছেদ আইনত নয়। আলাদা থাকেন তাঁরা। সে ভাবে যোগাযোগ না থাকলেও, পুনমের শুভানুধ্যায়ী তিনি, দাবি স্যামের।

পুনমের জীবিত থাকার খবর প্রকাশ্যে আসতে যখন সকলে প্রায় কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন তাঁকে, সেই সময় স্যাম বলেন, ‘‘আমি খুশি ও করে দেখিয়েছে। ও বেঁচে আছে। এটাই আমার কাছে যথেষ্ট। পুনম পাণ্ডে অসাধারণ। তিনি সবচেয়ে সাহসী ভারতীয় মহিলা। এখন থেকে বেশ কয়েক বছর পরে ওকে নিয়ে উদ্‌যাপন করা হবে। ওর এখনও অনেক কিছু করা বাকি আছে।’’ আনন্দবাজার

বাংলা সংবাদের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন