ভালোবাসা দিবসে একজন বাবার অনুভূতি

এই মুহুর্তে আমার কাছে নিজের বাবা-মায়ের পর সবচেয়ে প্রিয় ভালোবাসার মানুষ আমার মেয়ে আরুশা। বিষাদময় এই চারপাশ থেকে যখন ওর কাছে কেমন জানি সব ভুলে যাই। যে কটা দিন যতটুকু সময় আমি ওর সাথে কাটাই মনে হয় আমার অতীত বলে কিছু নেই।

ওর সাথের সময়টা আমার কাছে টনিকের মতো। মানুষ চিন্তামুক্ত ও শান্তিতে থাকার জন্য যেমন থেরাপি দেয়, ওষুধ কিনে খায়: আরুশার সাথে কাটানো সময়টুকু ঠিক তেমনি আমার কাছে টাকা দিয়ে থেরাপি বা শান্তি কেনার মতো। আমি বাবা হওয়ার পর নিজের বাবা-মার প্রতিও দৃষ্টিভঙ্গি আমার পরিবর্তন হয়েছে।

আমি বিশ্বাস করি, আমার যেমন আরুশাকে নিয়ে সুখানুভূতি হয়, আমার বাবা-মাসহ পৃথিবীর প্রতিটি বাবা-মা একই অনুভূমি ভনুভব করেন। নিজের বাচ্চাকে ভালো রাখার জন্য, তাদের ভবিষ্যতের জন্য পৃথিবীর প্রত্যেকটি বাবা-মাই তার সর্বোচ্চটা দেন। অসম প্রতিযোগিতার যুদ্ধ-রাজনীতি-ঝঞ্জাটময় পৃথিবীতে কোন পিতামাতা হয়তো পারেন বা কেউবা কুলিয়ে উঠতে পারেন না। কিন্তু তাদের চেষ্টার কমতি থাকে বলে আমি বিশ্বাস করি না।

আমার নিজের পরিবারে দ্বিতীয় ভালোবাসার মানুষটি হচ্ছে আরুশার মা। আরুশা ও সংসারকে যে চেষ্টা ও পরিশ্রমে সে আগলে রেখেছে তা আমি পারতাম না। ধৈর্য্যহারা হয়ে যেতাম। আসলে পৃথিবীর সব মায়েরা এমনই হয়। তাদের এই ঋণ কোনদিনই পরিশোধ করা যায় না। স্বামী-সংসার ঠিক রেখে আবার চাকরি!

আমি নিজে যখন একদিন আরুশাকে রাখতে যাই তখন ঠিকই টের পাই একটা সন্তান পালন করা কতোই না কষ্টের। আসলে আমাদের মায়েদের সংসারের প্রতি যে ত্যাগ তা আর্থিক মূল্য পরিমাপ করা গেলে দেশের জিডিপির আকার হয়তো আরো অনেক অনেক বড় হতো। সেটার আর্থিক মূল্য করাও সম্ভব না।

শেষ কথা হচ্ছে, সুখ-দুঃখ এই দুইয়ে মিলেয়েই সংসার। পৃথিবীর কেউই বলতে পারবে না তাদের সংসারে দুঃখ বলে কিছু নেই। সুখের পর যেমন দুঃখ আসে আবার দুঃখের পর সুখ। আমাদের সংসারও তেমনই। মাঝেমধ্যে জগৎ সংসার বেদনাদায়ক মনে হলেও মেয়ের মুখের দিকে তাকালে সবই ভুলে যাই। সপ্তাহান্তে পরিবারের সাথে আমার সাক্ষাৎ হয়। একসাথে থাকার সময় যতটা না বুঝতে পারি পরিবার রেখে দূরে আসার সময় ঠিকই পরিবারের অভাব টের পাই।

আজকের বিশেষ দিনে পরিবারের কাছ থেকে দূরে থেকে একটা কথা মনে হচ্ছে- সংসার হচ্ছে মায়ার খেলা। এই মায়ায় মোহবিষ্ট হয়ে পড়েছি আমি। অনেক ভালোবাসি তোমাদের। সেটা প্রকাশ না করলে আমি তো বুঝি।

আমার পরিবারের জন্য নিচের কথাটি একদম ঠিক:

‘‘সংসার সাগরে দুঃখ তরঙ্গের খেলা

আরুশা আমাদের একমাত্র ভেলা’

বাংলা সংবাদের খবর পেতে গুগল নিউজ চ্যানেল ফলো করুন