প্রচ্ছদ

মিশিগানে বিরল, বিপদ্দজনক ও মরণঘাতী মশাবাহিত ভাইরাস এই রোগের কোন ভ্যাকসিন নেই, চিকিৎসা নেই, নেই কোন প্রতিকারও

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:২০

পার্থ সারথী দেব, মিশিগান

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বিরল, বিপদ্দজনক ও  মরণঘাতী মশাবাহিত ভাইরাস ‘ইষ্টার্ন ইকুইন এনসেফালাইটিস’ এর সন্ধ্যান পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে।  রাজ্যের ব্যারি কাউন্টির এক ব্যক্তি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছেট্রিপল ই নামে পরিচিত ভাইরাসটি মশাবাহিত মারাত্মক রোগগুলির মধ্যে একটি।  যারা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন তাদের ৩৩ শতাংশই মারা যান আর যারা বেঁচে থাকেন তাদের শারিরিক ও মানসিক বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। এই ভাইরাসে আক্রান্ত ৯০ শতাংশ ঘোড়া মারা যায়।  রাজ্যে এ পর্যন্ত ১০ টি কাউন্টিতে ২২ টি ঘোড়া আক্রান্তহয়েছে বলে জানা গেছে। মিশিগান স্বাস্থ্য ও মানব সেবা বিভাগ মিশিগানের ১০টি কাউন্টির ( কাউন্টিগুলি হচ্ছে, ব্যারি, ক্লেয়ার, আইনিয়া, ইসাবেলা, জ্যকসন, কেন্ট, মেকোষ্টা, মন্টকলম, নেওয়েগো ও অকল্যান্ড) অধিবাসীদের অনুরোধ করেছে, সন্ধ্যার পর বাইরের অনুষ্টান বাতিল করতে বা স্থগিত করতে নতুবা মশার কামড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারে এ মরণঘাতী ভাইরাস। মিশিগানের চীফ মেডিকেল এক্সিকিউটিভ ড. জে. খালদুন এক বিবৃতিতে বলেছেন, সন্ধ্যায় বা সন্ধ্যার পর বাড়ীর বাইরের কার্যক্রম স্থগিত করতে, বাতিল করতে, শিশুদেরে মশার কামড় থেকে নিরাপদ দূরত্বে রাখতে অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ করেছেন। মিশিগানে গত বছর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ছয় জন মারা যান এবং ৪ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। মিশিগান স্বাস্থ্য ও মানব সেবা বিভাগের মুখপাত্র লিন সুতফিন জানান, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৪ জনের মধ্যে ৩ জন বেঁচে উঠলেও তাদের গুরুতর স্নায়ুজনিত সমস্যা ছিল। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণগুলো হলো, হঠাত জ্বর উঠা, শরীরের জয়েন্টে ব্যথা, মাথা ব্যথা, কাপুনি। ১৫ বছরের কম বয়েসি শিশু, কিশোর ও ৫০ বছরের উর্ধ্ব বয়েসীদের এ রোগের ঝুকি রয়েছে।  এই রোগের কোন ভ্যাকসিন নেই, চিকিতসা নেই, নেই কোন প্রতিকারও। এ রোগে আক্রান্ত হলে মষ্তিষ্কের ক্ষতিসহ মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন

আমাদের মোবাইল এপ্পসটি ডাউনলোড করুন