প্রচ্ছদ

শৈশব স্মৃতিচারণ

১৬ আগস্ট ২০২০, ০১:২৩

মাহবুব আজমল দুখু

করোনা পরিস্থিতিতে ঘরবন্দী কর্মহীন সময়ে মন অজান্তেই হারিয়ে যায় শৈশবের রঙিন উচ্ছ্বসিত দিনগুলোতে। চোখের পাতায় ভেসে উঠে বৃষ্টিতে কাকভেজা হয়ে কাদাময় শরীরে ফুটবল খেলায় মেতে উঠা! কখনো বিকালের অবসরে আবার কখনো স্কুল ফাঁকি দিয়ে চলতো খেলার আয়োজন, বৃষ্টি যেন সেই আনন্দে যোগ করতো আরও বাড়তি মাত্রা।

এমনও হতো একটা একটা করে প্রায় ঘরের সব কাপড় ই কর্দমাক্ত করে ফেলতাম তাও যেন খেলার স্বাদ অপূর্ণ থেকে যেতো। ভোরবেলা চারিদিকে ঘুঘুর আওয়াজ এখনো যেন দূর থেকে ডাকে, ফিরে যেতে ইচ্ছে জাগে সেই ছোট্টোবেলার আমিতে।
পানি বাড়লে পুকুরের একপাশে ছোট্ট নালা খনন করে পানি আসা-যাওয়ার ব্যবস্থা করে তাতে মাছ ধরার হরেকরকম যন্ত্র(ডরি,কোকা,পলো) ব্যবহার করে মাছ ধরার মহড়া চলতো। লাল বর্ণের পুঁটিমাছ দেখলেই মন আনন্দে নেচে উঠতো,আবার কষ্ট ও হতো এই ভেবে যে- মাছগুলো নতুন সাজে সেজে হয়তো কুটুমবাড়ি বেড়াতে যাচ্ছিলো আর এরমধ্যেই ধরা পড়ে গেলো!
মাঝেমধ্যে সাপ ও আটকা পড়তো, গ্রামাঞ্চলের এলাকাগুলোতে ওই বিষহীন সাপ কে আঞ্চলিক ভাষায় “ধুরা সাপ” বলে ডাকা হয়। আজও অজানা রয়ে গেল সাপটির শুদ্ধনাম।

বন্যার সময় যেখানে সবাই চরম দুর্দশায় হাহাকার করতেন সেখানে আমরা শিশুরা পুলকিত হয়ে আনন্দে লাফালাফি করতাম, আনন্দের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলো কলাগাছ দিয়া ভেলা বানানো এবং তাতে ভেসে ভেসে এদিক ওদিকে যাওয়া, এবাড়ি ওবাড়ি যাওয়া। তারপর ভেলা থেকে লাফ দিয়ে পড়া এবং সাঁতার কাটার প্রতিযোগিতা। আহা সেই দিনগুলি!

জীবনের দুইযুগ প্রবাসে জীবন সংগ্রামে কলুর বলদের মতো খেটে ভুলেই গেছিলাম আনন্দের আসল মানে! এতোটাই ব্যস্ত ও জঞ্জালযুক্ত হয়ে পড়েছিলাম যে সুন্দর সময় গুলো নিয়া লিখার আগ্রহ ই পেতাম না।

শৈশব কৈশোর তারুণ্য পেরিয়ে দুইযুগ পর এই কয়দিন আগে ভার্চুয়াল জগতের কল্যাণে ফিরে পেলাম পুরনো বন্ধুদের আর জীবনগ্লানির ক্রান্তিলগ্নে অবসর পেয়ে যেন লিখার আগ্রহ নতুন ভাবে উঁকি দিচ্ছে। তাই একটু আধটু স্মৃতিচারণ! আপনাদের যদি ভালো লাগে,এতেই আমার স্বার্থকতা। আপনাদের পর্যাপ্ত সাড়া পেলে ইনশাআল্লাহ জীবনের পরতে পরতে ঢাকা পড়ে যাওয়া ধুলিমাখা স্মৃতি গুলোকে সবার সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

সবার সুস্বাস্থ্য কামনা করে এবং দোয়া চেয়ে এখানেই ইতি টানলাম।

আল্লাহ হাফিজ,
মাহবুব আজমল দুখু
সাবেক সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক
(সিলেট সরকারি কলেজ ছাত্রসংসদ)
সাবেক প্রতিষ্ঠাতা পরিবহন সম্পাদক
(সিলেট এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ)

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •