প্রচ্ছদ

মিশিগানে স্থায়ী ক্রিকেট মাঠ, প্রবাসী বাংলাদেশিদের উচ্ছ্বাস

১৬ নভেম্বর ২০২১, ০০:৪১

তোফায়েল রেজা সোহেল :

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান রাজ্যে ক্রিকেট ক্রিকেট মাঠের বিল পাস হয়েছে। এ সংবাদে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ ক্রিকেট পাগল মানুষ দারুণ খুশি। বাংলাদেশি ক্রিকেট সংগঠনের নেতাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার ওয়ারেন সিটি কাউন্সিলের সভায় বিলটি পাস হওয়ার পর উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন প্রবাসী ক্রিকেটপ্রেমীরা।

জানা গেছে, মিশিগান টাইগার ইয়ুথ স্পোর্টস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট দেলোয়ার আনসার ক্রিকেট খেলার নিদিষ্ট দুটি মাঠ বরাদ্দের জন্য আবেদন জানান ওয়ারেন সিটিতে। তার দাবিটি কাউন্সিলম্যান জোনাথন লাফারটি ও রন পাপান্ড্রিয়া রেজুশেলন আকারে কাউন্সিলর সভায় উঠালে কোনো বিরোধিতা ছাড়াই বিলটি পাস হয়। হলমিছ পার্ক ও ওয়ারেন কমিউনিটি সেন্টারের একটি মাঠকে ক্রিকেটের নিদিষ্ট মাঠ হিসেবে প্রাথমিকভাবে বেছে নেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে টাইগার ইয়ুথ স্পোর্টস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট দেলোয়ার আনসার বলেন, মিশিগানের প্রতিটি সিটিতে খেলার মাঠ ও বিনোদন স্পটের ভরপুর। তবে এত বড় ওয়ারেন সিটিতে শুধুমাত্র টম্বলি পার্কে একটি ক্রিকেট মাঠ রয়েছে, এটি অপ্রতুল। আমাদের বাংলাদেশি কমিউনিটিতে অসংখ্য ক্রিকেট ক্লাব গড়ে উঠেছে। এমনকি মার্কিনি ও এরাবিক ছেলেরা আগ্রহী উঠেছেন খেলাটির প্রতি। ক্রিকেটের সমস্যার চিত্রটি তুলে ধরেছিলাম সিটির কাছে। এই বিল পাস হওয়ায় মিশিগানের ক্রিকেটপ্রেমী মানুষের প্রাণের দাবি পূরণ হয়েছে। তিনি সিটির সব কাউন্সিলর ও মেয়রকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

ক্রিকেটার জুবেল আহমেদ, অলিউর রহমান ও জুবান আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও ভারতের বিপুল সংখ্যক  ক্রিকেট পাগল মানুষ মিশিগানে স্থায়ীভাবে বসতি গড়েছেন। অসংখ্য ক্রিকেট ক্লাব গড়ে উঠেছে এখানে। ক্রিকেটের জমজমাট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মিশিগানে ক্রিকেটের নিদিষ্ট ভেন্যুর অভাবে ফুটবল মাঠে অনুষ্ঠিত হতো এসব ম্যাচ। ক্রিকেটের নির্ধারিত দুটি মাঠ নির্মিত হলে দীর্ঘদিনের ভোগান্তি দূর হবে। আমরা আশা করছি এই মিশিগান থেকে আন্তর্জাতিক মানের খেলোয়াড় বেরিয়ে আসবে।

ক্রিকেটার তানিম আহমেদ জানান, বেসবল, বাস্কেটবল ও ল্যাকোস খেলার দেশে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ ছড়িয়ে পড়েছে। তবে ক্রিকেটের নিদিষ্ট ভেন্যু নামমাত্র রয়েছে। ক্রিকেটের দুটি মাঠ বরাদ্দ হয়েছে এই খবরে এখানকার ক্রিকেটাররা দারুণ খুশি।

সিটি কাউন্সিলর জোনাথন লাফারটি ও রন পান্ডারিয়া ফেসবুক পেজে বলেছেন, ক্রিকেটের লজিস্টিক প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বাংলাদেশি যুবক দেলোয়ার আনসার সুন্দরভাবে তুলে ধরেন। এরপর আমাদের বিনোদনমূলক পরিষেবাগুলো আরও উন্নত করার পরিকল্পনা করি। রেজুলেশনে একটি স্থায়ী ক্রিকেট সুবিধা নির্মাণের কথা বলা হয়েছে। যা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজনের মানচিত্রে স্থান দেবে। ফেসবুকে দেলোয়ার আনসারের প্রশংসা করেন কাউন্সিলররা।

শেয়ার করুন

আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন

আমাদের মোবাইল এপ্পসটি ডাউনলোড করুন