প্রচ্ছদ

ইত্যাদিতে জেসন-মেরিন্ডি দম্পতির প্রতিবেদন নিয়ে হানিফ সংকেতের মন্তব্য

০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৩:৩৮

নাজমুস সাকিব, ফ্লোরিডা

যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে সবাই যখন ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলো গত ৪ ডিসেম্বর রাতে, তখন হঠাৎ একটি ইউটুব চ্যানেলের ভিডিও আমার দৃষ্টিগোচর হলো যেটা নিয়ে কিছু কথা না লিখে পারছি না। জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির গত পর্বে নন্দিত উপস্থাপক হানিফ সংকেত চমৎকারভাবে তুলে ধরেছিলেন টাঙ্গাইলের কাইলাকুড়ি হেলথ কেয়ার সেন্টার এর বর্তমানে হাল ধরা নির্লোভ, সজ্জন ডাক্তার দম্পতি জেসন -মেরিন্ডি সম্পর্কে যারা ডাক্তার ভাই নামে পরিচিত নিউজিল্যান্ডের এড্রিক বেকার এর মৃত্যুর পর তাঁর গড়ে তোলা এই প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক কার্যক্রম দেখাশোনা করছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রাচুর্য তুচ্ছ করে এই প্রত্যন্ত গ্রামে নিজেদের ৩ টি ফুটফুটে সন্তান নিয়ে বাংলাদেশের গরিব অসহায় রোগীদের সেবা দিয়ে মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করা এই দম্পতিকে নিয়ে করা হানিফ সংকেতের প্রতিবেদনটি হৃদয় ছুঁয়েছে এদেশের এবং দেশের বাইরের কোটি কোটি দর্শকদের। স্বাভাবিকভাবেই প্রতিবেদনটি দেখে অনেকেই জেসন -মেরিন্ডি দম্পতিকে ভালোবাসা জানিয়েছেন এবং হানিফ সংকেতকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন এমন চমৎকার একটি বিষয় আমাদের সামনে তুলে ধরার জন্য যা সবার জন্য নিঃসন্দেহে অনুকরণীয়। ইত্যাদিতে প্রচারিত এই প্রতিবেদনের কোথাও আমাদের দেশের ডাক্তারদের অবজ্ঞা করা হয় নি। তথাকথিত সেই ইউটুব চ্যানেলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে হানিফ সংকেত নাকি আমাদের দেশের ডাক্তাদের অবজ্ঞা করেছেন তাঁর প্রতিবেদনে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। তাছাড়া সহজ সরল ডাক্তার জেসনকে পাশে রেখে উক্ত ভিডিওর উপস্থাপক তাঁর উদ্দেশ্যমূলক বক্তব্য প্রচার করতে থাকেন বাংলা ভাষায়, যা ডাক্তার জেসনের পক্ষে স্বাভাবিকভাবেই বোঝা সম্ভব নয়। শুধুমাত্র ফেসবুকে ভাইরাল হবার অসুস্থ প্রতিযোগিতায় জয়ী হবার জন্য, এবং হানিফ সংকেত এবং ইত্যাদির প্রতিবেদনটিকে বিতর্কিত করার জন্য উক্ত উপস্থাপক প্রানান্তকর প্ৰচেষ্টা করেছে, যা সচেতন দর্শক দেখলেই বুঝতে পারবেন। দর্শকদের গালি থেকে বাঁচার জন্য তারা উদ্দেশ্যমূলকভাবে ইউটুব এর কমেন্টস সেকশন বন্ধ করে রেখেছে! তারা যদি সততার সাথেই প্রতিবেদন প্রচার করে থাকেন তাহলে জনগণের মন্তব্য হজম করতে তাদের এত অনীহা কেন? এ বিষয়ে বাংলা সংবাদের পক্ষ থেকে যখন হানিফ সংকেতের সাথে যোগাযোগ করা হয় তখন তিনি বলেন, “এই বিষয়টি আমাকে বেশ অবাক করেছে। আমাদের প্রতিবেদনের কোথাও আমরা বাংলাদেশের ডাক্তারদের ছোট করিনি। আমরা শুধুমাত্র জেসন- মেরিন্ডি দম্পতির অসাধারণ মানবিকতার বিষয়টি তুলে ধরে সবাইকে অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা করেছি। এই ডাক্তার দম্পতি অসাধারণ প্রাচুর্যের জীবন ফেলে রেখে এখন প্রত্যন্ত অঞ্চলের একটি গ্রামের মাটির ঘরে বসবাস করছেন, সন্তানদের উন্নত জীবনে মানুষ করার সুযোগ ফেলে গ্রামের সাধারণ মানুষদের সাথে মিলেমিশে আর্তমানবতার সেবার এক বিরল দৃষ্টান্তস্থাপন করেছেন। ডাক্তার বেকারের মৃত্যুর পর দুঃখজনক হলেও সত্য এমন কাউকেই পাওয়া যায়নি যিনি পরিবার পরিজন সমেত এই প্রতিষ্ঠানের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানের জন্য নিবেদিত হতে চেয়েছিলেন। সুদূর আমেরিকা ছেড়ে সেই কাজটি করেই বিরল দৃষ্টান্ত রেখে চলেছেন এই ডাক্তার দম্পতি, তাই এই বিষয়টি ভিন্নভাবে দেখার কোনো সুযোগ নেই।” বস্তুত তথ্যের বিকৃতি ঘটিয়ে, হীন উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের উদ্দেশে করা এধরণের প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আমাদের যার যার অবস্থান থেকে প্রতিবাদ করা উচিত। শুধুমাত্র ভাইরাল হবার উদ্দেশ হানিফ সংকেতের মতো সর্বজন শ্রদ্ধেয় একজন মিডিয়া ব্যক্তিত্বের বিরুদ্ধে যারা এমন অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে,তাদের মুখোশ উন্মোচন করা খুব প্রয়োজন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে এধরণের মিথ্যা প্রোপাগান্ডা থেকে বাঁচানোর জন্য এছাড়া আর কোনো উপায় নেই

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন

আমাদের মোবাইল এপ্পসটি ডাউনলোড করুন